আজ ৯ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ | ২২শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | দুপুর ১:৩৩

  • বাংলা English
সদ্য :

☉ নব নির্বাচিত এমপিকে ৬ ইউপি চেয়ারম্যানের ফুলেল শুভেচ্ছা☉ প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত জাহাঙ্গীরের দাফন সম্পন্ন \ ঘাতক সিরাজুল গ্রেপ্তার☉ মঠবাড়িয়ায় বাল্য বিয়ে রোধে তারুণ্যের কন্ঠ অনুষ্ঠিত☉ অবাধ ও সুষ্ঠ নির্বাচন বানচালকারীদের কোন ছাড় নয়☉ বখাটে গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবিতে বড়মাছুয়ায় শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মানববন্ধন☉ মঠবাড়িয়া-বড়মাছুয়া সড়কে কার্পেটিং কাজে আবারও নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার : পিচ-পাথর নিয়ে স্থানীয়দের ক্ষোভ☉ বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী আবদুর রশিদ মানিক মিঞা’র দাফন সম্পন্ন☉ ছাত্রলীগ নেতা সোহেলের নিঃশর্ত মুক্তি ও মামলা প্রতাহারের দাবিতে মানববন্ধন☉ মঠবাড়িয়ায় থানার ওসি প্রত্যাহার☉ ১৮ মামলার আসামী ফল সোহেলসহ গ্রেপ্তারকৃত-১২জন জেল হাজতে

ক্রশফায়ারের আতংকে মাদক ব্যবসায়ীরা এলাকা ছাড়া ॥ গড ফাদাররা ধরা ছোঁয়ার বাইরে

ক্রশফায়ারের আতংকে মাদক ব্যবসায়ীরা এলাকা ছাড়া ॥ গড ফাদাররা ধরা ছোঁয়ার বাইরে

স্টাফ রিপোর্টার : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় মিজানুর রহমান নামের মাদক ব্যবসায়ী ও ডাকাতের ক্রশফায়ারের ফলে উপজেলার মাদক ব্যবসায়ী ও সেবনকারীদের মধ্যে আতংক বিরাজ করে। এ আতংকে মাদক ব্যবসায়ীরা এলাকা ছেড়ে গা ঢাকা দিয়েছে। পৌর শহরের অলিগলি থেকে শুরু করে ১১ ইউনিয়নের প্রত্যন্ত এলাকায় বিস্তার ঘটা মাদক ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। উঠতি বয়সের স্কুল ও কলেজগামী শিক্ষার্থীরা থেকে শুরু করে যুবকরা ইয়াবা, গাজা ও ফেন্সিডিল নামক মাদকে আসক্ত হচ্ছে। মাদক ব্যবসার নেপথ্যে ও পৃষ্ঠপোষকতায় রয়েছে রাজনৈতিক দলের নেতা ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধির একটি শক্তিশালী সিন্ডিকেট। স্থানীয় থানা পুলিশ মাঝে মাঝে অভিযান চালিয়ে মাদক সেবী ও কতিপয় ব্যবসায়ীদের গ্রেফতার করলেও মুল হোতারা থাকে ধরা ছোঁয়ার বাইরে। পুলিশের তালিকায় শতাধিক মাদক ব্যবসায়ীর নাম থাকলেও শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ীর তালিকায় রয়েছে ৮ থেকে ১০জন। পুলিশ আরও দাবী করেছে ইতিমধ্যে ২০/২২ জনকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে। তবে অধিকাংশ শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ীরা এখনও রয়েছে ধরা ছোয়ার বাইরে।
থানা পুলিশের তালিকায় মাদক ব্যবসায়ী ও মাদকসেবীরা হলঃ মঠবাড়িয়া পৌর শহরের দক্ষিণ বন্দর এলাকার হাজি সুমন, ইমরান (বর্তমানে জেল হাজতে), রুস্তুম, মিরুখালী টেম্পু স্ট্যান্ড এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী গাজা শফিক, বহেরাতলার সবুজ দফাদার, রাসেল খান, মিরাজ (জেল হাজতে) জাফর, সোহাগ হাওলাদার, রাসেল হাওলাদার, সিনেমা হল এলাকার রাজু, দক্ষিণ মিঠাখালী ১নং ওয়ার্ড কালু বেপারী, ছগির, গয়ালীপাড়া নুসরাত শাহী (কিংজল), দক্ষিণ বহেরাতলা টুকু, কামাল বেপারী, সবুজ নগরের শাহাদাৎ, মাসুম, সবুজ, শহরের থানাপাড়া এলাকার ইমরান, রনজিৎ মুচি, মহারাজ সরদার ও পৌরসভার নিউমার্কেট এলাকার রুবেল হাওলাদার। তুষখালীর সালাম বেপারী, সুমন জমাদ্দার (উভয় মাদক মামলায় জেল হাজতে), মানিক শরীফ, ইয়াছিন, শাহআলম, শাজাহান, আব্বাস ফকির ওরফে শিশু ফকির. ছোট মাছুয়ার ইব্রাহীম হাওলাদার। ধানীসাফার উদয়তারা বুড়িরচর গ্রামের জলিল মিয়া, রাজু মোল্লা, সোহেল, ছগির মির্জা, জসীম তালুকদার (জেল হাজতে), ফুলঝুড়ি গ্রামের কবির মোল্লা, পাতাকাটা গ্রামের এহসানুল হক মন্টু। আঙ্গুলকাটার জাহাঙ্গির শিকদার, আলগী পাতাকাটা গ্রামের জসিম, সাব্বির। মিরুখালীর ভগিরথপুর বাজার ও মুসুল্লিবাড়ি বাস স্ট্যান্ড মাদকের স্পট হিসেবে পরিচিত। ছোট হারজির কামরুল। এছাড়াও স্থানীয় ঘোপখালী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শফিকুল ইসলাম মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত। স্থানীয়দের অভিযোগ ওই শিক্ষক দীর্ঘদিন বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত থেকে মাদক ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। যে কারণে ওই শিক্ষকের সাথে স্কুল শিক্ষিকা স্ত্রীর বিবাহ বিচ্ছেদও ঘটে। দাউদখালীর রুবেল ও আসাদ খান (উভয় মাদক মামলায় জেল হাজতে), বড়হারজির বেল্লাল হোসেন হারজি নলবুনিয়ার সগির, খায়ের ঘটিচোরা গ্রামের লাইনের পারের দুই সহোদর গাজা স¤্রাট বেল্লাল হোসেন (ক্রশফায়ারে নিহত মিজানের চাচাত ভাই) নজরুল (ক্রশফায়ারে নিহত মিজানের আপন ভাই বর্তমানে মাদক মামলায় জেল হাজতে)। মঠবাড়িয়ার সদর ইউনিয়নের ইয়াবা ব্যবসার বড় জোন উত্তর মিঠাখালী গ্রাম। এখানের স্থানীয় খোসালের বাড়ি, মাঝের পোল ও গুদিঘাটা নামক স্থান থেকে বিভিন্ন এলাকায় মাদক ইয়াবা ট্যাবলেট চলে যায়। এখানে শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী ওলি জমাদ্দার, রাজু ফরাজী (জেল হাজতে) রবিন, মামুন, নিজাম (মাদক মামলায় জেল হাজতে), শফিক, জাহিদুল ওরফে নিপুন। বকশির ঘটিচোরার রাকিব, শান্ত, দক্ষিণ মিঠাখালী গ্রামের বাদল মল্লিক, শফিকুল, মামুনসহ আরও অনেকে এ ব্যবসা নির্বিঘেœ চালিয়ে আসছে। টিকিকাটার বাইশকুড়ার শামিম, শাহিন হাং, মিরাজ পেদা, সবুজ হাওলাদার, পশ্চিম সেনের টিকিকাটার রুবেল, ভেচকি গ্রামের আঊয়াল ওরফে ইয়াবা আউয়াল ও স্বপন জমাদ্দার। বেতমোর রাজপাড়া এলাকার নিজাম হাওলাদার, মহারাজ হাওলাদার (মাদক মামলায় জেল হাজতে), কালিরহাটের রুহুল আমীনসহ আরও অনেকে এখানে ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। আমড়াগাছিয়া ইউনিয়নে কুখ্যাত জুয়েল ডাকত (মাদক মামলায় জেল হাজতে), পবিত্র সাহা, শামিম, কুলুর হাটের সোহেল, সুমন। সাপলেজার রিয়াজ হাওলাদার, রেজাউল, কালাম, জাবের, মনির। হলতা গুলিসাখালীর টিয়ারখালীর নিজাম, দূর্গাপুরের জহির, গুলিসাখালীর রনি। বড়মাছুয়ার সাইদুল, তপন মিস্ত্রী, আবুল কালাম, দক্ষিণ বড় মাছুয়ার নুর ইসলাম, আলামীন।
মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ গোলাম ছরোয়ার জনান, শীর্ষ মাদক ব্যাবসায়ী কিছু গ্রেফতার হলেও বাকীরা এলাকায় না থাকায় গ্রেফতার করা যাচ্ছে না।
পিরোজপুরের পুলিশ সুপার মোহাম্মাদ সালাম কবির জানান, স্থানীয় মাদকের পৃষ্ঠপোষক ও গড ফাদারদের বিষয় তদন্ত চলছে। তাদের আয়েরও খোজ খবর নেয়া হচ্ছে। তদন্তে দোষি প্রমানিত হলে যতই ক্ষমতাধর হোক না কেন তাদেরকে দ্রুত গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হবে।

Comments

comments

আরও পড়ুন

নব নির্বাচিত এমপিকে ৬ ইউপি চেয়ারম্যানের ফুলেল শুভেচ্ছা
নব নির্বাচিত এমপিকে ৬ ইউপি চেয়ারম্যানের ফুলেল শুভেচ্ছা
নব নির্বাচিত এমপিকে ৬ ইউপি চেয়ারম্যানের ফুলেল শুভেচ্ছা
প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত জাহাঙ্গীরের দাফন সম্পন্ন \ ঘাতক সিরাজুল গ্রেপ্তার
প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত জাহাঙ্গীরের দাফন সম্পন্ন \ ঘাতক সিরাজুল গ্রেপ্তার
প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত জাহাঙ্গীরের দাফন সম্পন্ন \ ঘাতক সিরাজুল গ্রেপ্তার
মঠবাড়িয়ায় বাল্য বিয়ে রোধে তারুণ্যের কন্ঠ অনুষ্ঠিত
মঠবাড়িয়ায় বাল্য বিয়ে রোধে তারুণ্যের কন্ঠ অনুষ্ঠিত
মঠবাড়িয়ায় বাল্য বিয়ে রোধে তারুণ্যের কন্ঠ অনুষ্ঠিত
অবাধ ও সুষ্ঠ নির্বাচন বানচালকারীদের কোন ছাড় নয়
অবাধ ও সুষ্ঠ নির্বাচন বানচালকারীদের কোন ছাড় নয়
অবাধ ও সুষ্ঠ নির্বাচন বানচালকারীদের কোন ছাড় নয়
বখাটে গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবিতে বড়মাছুয়ায় শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মানববন্ধন
বখাটে গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবিতে বড়মাছুয়ায় শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মানববন্ধন
বখাটে গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবিতে বড়মাছুয়ায় শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মানববন্ধন
মঠবাড়িয়া-বড়মাছুয়া সড়কে কার্পেটিং কাজে আবারও নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার : পিচ-পাথর নিয়ে স্থানীয়দের ক্ষোভ
মঠবাড়িয়া-বড়মাছুয়া সড়কে কার্পেটিং কাজে আবারও নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার : পিচ-পাথর নিয়ে স্থানীয়দের ক্ষোভ
মঠবাড়িয়া-বড়মাছুয়া সড়কে কার্পেটিং কাজে আবারও নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার : পিচ-পাথর নিয়ে স্থানীয়দের ক্ষোভ