আজ ১৬ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ | ২৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | দুপুর ২:১০

  • বাংলা English
সদ্য :

☉ নব নির্বাচিত এমপিকে ৬ ইউপি চেয়ারম্যানের ফুলেল শুভেচ্ছা☉ প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত জাহাঙ্গীরের দাফন সম্পন্ন \ ঘাতক সিরাজুল গ্রেপ্তার☉ মঠবাড়িয়ায় বাল্য বিয়ে রোধে তারুণ্যের কন্ঠ অনুষ্ঠিত☉ অবাধ ও সুষ্ঠ নির্বাচন বানচালকারীদের কোন ছাড় নয়☉ বখাটে গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবিতে বড়মাছুয়ায় শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মানববন্ধন☉ মঠবাড়িয়া-বড়মাছুয়া সড়কে কার্পেটিং কাজে আবারও নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার : পিচ-পাথর নিয়ে স্থানীয়দের ক্ষোভ☉ বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী আবদুর রশিদ মানিক মিঞা’র দাফন সম্পন্ন☉ ছাত্রলীগ নেতা সোহেলের নিঃশর্ত মুক্তি ও মামলা প্রতাহারের দাবিতে মানববন্ধন☉ মঠবাড়িয়ায় থানার ওসি প্রত্যাহার☉ ১৮ মামলার আসামী ফল সোহেলসহ গ্রেপ্তারকৃত-১২জন জেল হাজতে

গুলিসাখালীতে সবজি চাষীকে কুপিয়ে হত্যা! আটক-১

গুলিসাখালীতে সবজি চাষীকে কুপিয়ে হত্যা! আটক-১

স্টাফ রিপোর্টার: পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় সোবাহান পেয়াদা (৫০) নামে এক সব্জি চাষীকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। বুধবার (৯ ডিসেম্বর) ভোররাতে স্থানীয়রা উপজেলার দক্ষিণ কবুতরখালী গ্রামের কাঞ্চন হাওলাদারের বাড়ির সামনের সড়কে নিহতের লাশ দেখতে পেয়ে থানা পুলিশকে খবর দেয়। থানা পুলিশ দুপুরে ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করেছে। ধারণা করা হচ্ছে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে মঙ্গলবার গভীর রাতে দুর্বৃত্তরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে নৃশংসভাবে হত্যা করে রাস্তায় ফেলে রেখে যায়। নিহত সোবাহান পেয়াদা ওই গ্রামের মৃত. তুজাম্বর পেয়াদার ছেলে। নিহত সোবাহানের ৪ স্ত্রী ও ৭ সন্তান রয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, বুধবার খুব সকালে স্থানীয়রা রক্তাক্ত অবস্থায় লাশ পরে থাকতে দেখে স্থানীয় চৌকিদারকে জানায়। চৌকিদার তাৎক্ষণিক পুলিশকে অবহিত করে। মঙ্গলবার রাতে বাড়ীর সম্মুখে সোবাহান পেয়াদা দক্ষিণ কবুতরখালী ব্রিজ সংলগ্ন আল আমিনের দোকানে বসেছিল। রাত ৯টার সময় পরিবারের স্বজনদের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলেও এরপর ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। স্থানীয়রা আরও জানান, নিহত সোবাহান পেয়াদা তার চাচাতো ভাগ্নি রাবেয়া হত্যা মামলার চার্জশীটভুক্ত আসামী।
নিহতের মেয়ে ও ৮ম শ্রেনীর ছাত্রী সাদেকা আক্তার (১৪) জানান- তার বাবার স্থানীয় কোন শত্রু না থাকলেও একটি চুরির ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রতিবেশী লোকমান তালুকদারের পুত্র রনি (২২), বারেচের পুত্র জনি (১৮) ও তাদের কয়েকজন বন্ধু তার ভাই রফিকুল ওরফে কালা (১৮) কে সম্প্রতি মিথ্যা চুরির অপবাদ দিয়ে মারধর করলে আমার পিতা এর প্রতিবাদ করে। এতে রনি ও জনি বাড়িতে গিয়ে তার পিতাকে প্রাণ নাশের হুমকি দেয়। তারাই আমার পিতাকে হত্যা করেছে বলে ওই শিক্ষার্থী দাবী করেন।
নিহতের অপর মেয়ে সাবিনা (২২) জানান, গত ৭/৮ বছর আগে তার পিতা ১০ বছর সৌদি আরব থেকে এসে বাড়ীর সামনে সবজি চাষ করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছিল।
মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ আ.জ.ম মাসুদুজ্জামান মিলু বলেন, প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে মঙ্গলবার গভীর রাতে তাকে পরিকল্পিতভাবে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হারুন (৪০) নামের একজনকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনার পর বুধবার দুপুরে পিরোজপুরের পুলিশ সুপার হায়াতুল ইসলাম খান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

Comments

comments

আরও পড়ুন

নব নির্বাচিত এমপিকে ৬ ইউপি চেয়ারম্যানের ফুলেল শুভেচ্ছা
নব নির্বাচিত এমপিকে ৬ ইউপি চেয়ারম্যানের ফুলেল শুভেচ্ছা
নব নির্বাচিত এমপিকে ৬ ইউপি চেয়ারম্যানের ফুলেল শুভেচ্ছা
প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত জাহাঙ্গীরের দাফন সম্পন্ন \ ঘাতক সিরাজুল গ্রেপ্তার
প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত জাহাঙ্গীরের দাফন সম্পন্ন \ ঘাতক সিরাজুল গ্রেপ্তার
প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত জাহাঙ্গীরের দাফন সম্পন্ন \ ঘাতক সিরাজুল গ্রেপ্তার
মঠবাড়িয়ায় বাল্য বিয়ে রোধে তারুণ্যের কন্ঠ অনুষ্ঠিত
মঠবাড়িয়ায় বাল্য বিয়ে রোধে তারুণ্যের কন্ঠ অনুষ্ঠিত
মঠবাড়িয়ায় বাল্য বিয়ে রোধে তারুণ্যের কন্ঠ অনুষ্ঠিত
অবাধ ও সুষ্ঠ নির্বাচন বানচালকারীদের কোন ছাড় নয়
অবাধ ও সুষ্ঠ নির্বাচন বানচালকারীদের কোন ছাড় নয়
অবাধ ও সুষ্ঠ নির্বাচন বানচালকারীদের কোন ছাড় নয়
বখাটে গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবিতে বড়মাছুয়ায় শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মানববন্ধন
বখাটে গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবিতে বড়মাছুয়ায় শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মানববন্ধন
বখাটে গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবিতে বড়মাছুয়ায় শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মানববন্ধন
মঠবাড়িয়া-বড়মাছুয়া সড়কে কার্পেটিং কাজে আবারও নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার : পিচ-পাথর নিয়ে স্থানীয়দের ক্ষোভ
মঠবাড়িয়া-বড়মাছুয়া সড়কে কার্পেটিং কাজে আবারও নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার : পিচ-পাথর নিয়ে স্থানীয়দের ক্ষোভ
মঠবাড়িয়া-বড়মাছুয়া সড়কে কার্পেটিং কাজে আবারও নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার : পিচ-পাথর নিয়ে স্থানীয়দের ক্ষোভ